বরিশালে ট্রিপল মার্ডারে গ্রেপ্তার ১

  • আপডেট টাইম : ডিসেম্বর ০৭ ২০১৯, ০৮:১৩
  • 56 বার পঠিত
বরিশালে ট্রিপল মার্ডারে গ্রেপ্তার ১

বানারীপাড়ায় ট্রিপল মার্ডারে সন্দেহ ভাজন আসামি জাকির হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ । জাকির ঝালকাঠির পূর্ব রায়পুরের চুন্নু হাওলাদারের ছেলে। এরই মধ্যে র‌্যাব, থানা পুলিশ, পিবিআই, সিআইডিসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন ইউনিট তদন্তে নেমেছে। পাশাপাশি বরিশাল রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি মোঃ এহসানউল্ল্যাহ, জেলা পুলিশের সুপার সাইফুল ইসলাম-বিপিএম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ আব্দুর রকিবসহ উর্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন।
পরিদর্শনকালে মৃতদের পরিবারের স্বজনদের সাথে কথা বলে পুরো ঘটনা হত্যাকাণ্ড বলে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ। যার সতত্যা নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ আব্দুর রকিব।
উল্লেখ্য শনিবার সকালে সলিয়াবাকপুরের হাওলাদার বা‌ড়ি এলাকার আব্দুর রবের বাড়ি থেকে তার মা ম‌রিয়ম বেগম (৭০), মে‌জ বো‌ন মমতাজ বেগমের স্বামী অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক শ‌ফিকুল আলম (৬০) ও খালাতো ভাই মো. ইউসুফ (২২) এর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

বাড়ির মালিক কুয়েত প্রবাসী আঃ রবের স্ত্রী মিশরাত জানান, শুক্রবার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে যে যার মতো খাবার খেয়ে শুতে যান। ওইসময় ঘরে তিনিসহ তার দুই শিশু সন্তান নুরজাহান (৪), ইশফাত (৯), দেবর হারুন অর রশিদের মেয়ে আছিয়া ওরফে আফিয়া, শাশুড়ি মরিয়ম বেগম (৭০), ননদ মমতাজের স্বামী শফিকুল আলম(৬০) ও শাশুড়ির বোনের ছেলে (দেবর) ইউসুফ ছিলেন। এরপর ভোরে ফজরের আযানের পর আফিয়ার চিৎকারের শব্দে সবাই ঘুম থেকে ওঠেন।

নিহত ম‌রিয়ম বেগমের নাত‌নি আ‌ছিয়া ওরফে আফিয়া বলেন, ভোরে ফজরের নামা‌জ পড়ার জন্য ঘুম থেকে উঠে দাদিকে ওঠানে যান। তখন দেখি দাদির রুমের বারান্দার দরজা খোলা এবং তার নিথর দেহ বারান্দায় পরে রয়েছে। এরপর চিৎকার দিলে বাড়ির সবাই আসেন কিন্তু ফুপা শফিকুল আলম ও চাচা ইউসুফকে দেখতে না পেয়ে তাদের খুজতে থাকি। তখন ঘরের অন্য একটি কক্ষে যেখানে ফুপা ঘুমাচ্ছিলেন, সেখানে গিয়ে তার মাথার অংশ খাটের বাহিরে দেখে সন্দেহ হয়। ডাকাডাকি করলেও তিনিও কোন সারাশব্দ করেননি। পরে চাচা ইউসুফকে খুজতে ছাদের দিক গেলে সেখানে দরজা খোলা পাই, তবে কারো দেখা মেলেনি। এরপর বাড়ির বাহিরে খুজতে শুরু করলে চাচা ইউসুফকে পুকুরের ঘাটলায় উপুর হয়ে পড়ে থাকতে দেখি।

পরিবারের এই দুই নারী সদস্যদের দাবী কিভাবে এবং কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তারা কিছুই জানেন না। এমনকি রাতে ঘুমানোর পর কোন সারাশব্দও পাননি। তবে ঘরের ভেতরের একটি আলমিরা থেকে কিছু অলংকার খোয়া গেছে বলে জানান মিশরাত। এরবাহিরে আর কিছু খোয়া গেছেন কিনা তা এখনও বলতে পারছেন না।

এদিকে কুয়েত প্রবাসী আঃ রব এর ছোটভাই হারুন অর র‌শিদ বলেন, আমার মেঝো বোন মমতাজের স্বামী শ‌ফিকুল ইসলাম দুই দিন আগে নিজ বা‌ড়ি স্বরূপকাঠি থেকে এ বা‌ড়িতে বেড়াতে আসেন। আবার দুইদিন পরে তার ঢাকায় যাওয়ার কথাও ছিল।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর







ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
বাস্তবসম্মত রোডম্যাপ’ প্রণয়ন করুন : জাতিসংঘেহাসপাতালে ডিবি প্রহরায় নুরকোন অফিসারের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেলে ছাড় দেয়া হচারঘন্টার ব্যবধানে কুয়াকাটার আবাসিক হোটেল থডাকসু ভিপি নুর গ্রেপ্তারবরিশাল বিভাগে আ.লীগের চূড়ান্ত প্রার্থী যারাউজিরপুরে সন্ত্রাসী হামলায় গৃহবধুর শ্লীলতাহ৭ দিনের রিমান্ডে নৃত্যশিল্পী বরিশালের ইভানগলাচিপায় নির্ভীক এক ইউএনওকুয়াকাটায় হোটেল আল্লারদান থেকে জেলের লাশ উদ্ঝালকাঠিতে চাঁদার দাবিতে ব্যবসায়ীকে হত্যাচেঢাকার দুই লঞ্চ মাঝপথে নামিয়ে দিলেন মনপুরার ৩ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জনধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে নুরের বিরুদ্ধে মামদ্বিতীয় ধাপে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা, প্রস্তু
%d bloggers like this: