নগরীর চাঁদমারীতে পানির পাইপে ফাটল, ভোগান্তিতে কয়েক হাজার পরিবার

  • আপডেট টাইম : মে ১৭ ২০২০, ১৭:২০
  • 74 বার পঠিত
নগরীর চাঁদমারীতে পানির পাইপে ফাটল, ভোগান্তিতে কয়েক হাজার পরিবার

শামীম আহমেদ ॥ বরিশাল নগরীর ১০ নং ওয়ার্ড চাঁদমারী এলাকায় সিটি কর্পোরেশনের সংযোগ পাইপ ফেটে পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে আশপাশ এলাকা। অন্তত দুই সপ্তাহ ধরে পানি বের হলেও মেরামতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কোন উদ্যোগ নিচ্ছে না। এনিয়ে ১০ নম্বর ও ১৬ নম্বর ওয়ার্ডবাসীর মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ভোগান্তিতে রয়েছে কয়েক হাজার পরিবার।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বিশ্ব জুড়ে চলছে করোনা ভাইরাস আতঙ্ক অন্য দিকে তীব্র গরমের শ্বাস নিতে হচ্ছে কন্ঠ। তার মধ্যে প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে ঘরে নেই সাপ্লাইর পানি। সারাদিন রোজা রেখে পানির কারনে পড়তে পারচ্ছিনা নামাজ। বিষয়টি স্থানীয় কাউন্সিলকে বেশ কয়েকবার বলা হলেও তিনি নেয়নি কোন পদক্ষেপ। পানির কারনে ১০ ও ১৬ নম্বার ওয়ার্ডের মানুষজন পড়েছেন চরম ভোগান্তিতে।

নগরীর ব্রাউন্ড কম্পাউন্ট রোর্ডের বাসিন্দা আকাশ শরীফ বলেন, পানির সমস্যা এটা নতুন নয়। কিন্তু এরকমের সমস্যায় কোন সময় পড়তে হয়নি আমাদের। আজ টানা প্রায় ১ সপ্তাহ ধরে পানি মুখ দেখছিনা। গোসল না করতে পেয়ে নামাজও পড়তে পারচ্ছিনা। তিনি আরো বলেন, এদিকে করোনার কারনে ঘর থেকে বের হচ্ছিনা ভয়ের কারনে। অন্যদিকে পানির সমস্যায় ভুগছি আমরা।

১০ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি সাইফুল ইসলাম জানান, চাঁদমারী মসজিদের অদুরে কাউন্সিলরের বাসার সামনে তিনটি রোডের মুখের পানির পাইপটি ফেটে দীর্ঘদিন ধরে পানি বের হয়ে আশপাশ এলাকা তলিয়ে গেছে। অব্যাহতভাবে পানি বের হতে থাকায় ডিসির বাংলোর সড়কটি একটি বড় অংশ ডুবে রয়েছে। ফলে যানবাহনসহ পথচারী চলাচলে ভোগান্তি দেখা
দিয়েছে। বিষয়টি সপ্তাহ খানেক আগে ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে এলাকাবাসীর পক্ষে একাধিকবার অবহিত করা হলেও তিনি কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি।

তবে কাউন্সিলর শহিদুল্লাহ কবির জানান, একাধীকবার বিসিসির পানি শাখায় অবগত করা হয়েছে। তারপর ও বিসিসি থেকে কেউ আসে নি। তবে চেষ্টা চলছে মেরামত করার। স্থানীয় এক বাসিন্দা গণমাধ্যমকে জানান, সর্বশেষ গত দুদিন ধরে পাইপটি থেকে বেশি পরিমাণ পানি বের হয়ে যাওয়ায় আমবাগানের বাসিন্দারা ভোগান্তিতে পড়েছেন। এখন অনেকেই বাসা-বাড়ির ট্যাপে পানি পাওয়া যাচ্ছেন না। খবরটি সিটি কর্পোরেশনের পানি শাখাকে অবহিত করা হলে সেখান থেকেও মেরামতে উদ্যোগ নেই।

একটি সূত্র জানায়-একজন স্যানিটারি মিস্ত্রি দেখে মেরামতে ৬ হাজার টাকার প্রয়োজনীয়তা জানিয়েছিলেন। এই বিষয়টিও কাউন্সিলর ও তার বড়ভাইকে অবহিত করা হয়েছিল। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের পানি শাখার প্রকৌশলী ওমর ফারুককে ফোন করে অবহিত করা হয়। কিন্তু তিনি এ ব্যাপারে সরাসরি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র সাথে কথা বলার পরামর্শ দেন। ওয়ার্ডবাসী চলমান করোনা দুর্যোগে সামাজিক দুরত্বের কারণে মেয়র পর্যন্ত যেতে পারেনি।

এই বিষয়ে জানতে পানি শাখার প্রকৌশলী ওমর ফারুকের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দেওয়া হলেও তিনি রিসিভ করেনি। সূত্রগুলো জানায়- অতিদ্রুত পানির সংযোগটি মেরামত করা না হলে ১০ ও১৬ নং ওয়ার্ডের অধিকাংশ বাসিন্দা পানিবঞ্চিত হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। এবং ওই স্থানের বাসিন্দাদের চলাচলে দিনাত্তোর ভোগান্তির মাত্রা বৃদ্ধি পাবে। এমন বাস্তবতায় সিটি মেয়রের হস্তক্ষেপ চাইছেন ওয়ার্ডবাসী।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

হালিমা খাতুন স্কুলের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি, বরিশাল







ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
কুয়াকাটায় চার আবাসিক হোটেল মালিককে দণ্ডটেস্ট ও ওয়ানডে খেলতে বাংলাদেশে আসবে ভারতনৌযান চলাচলের অনুমতির দাবিতে বরিশালে বিক্ষোসাংবাদিক রোজিনার ওপর হামলা ও মামলার প্রতিবাসাংবাদিক রোজিনার রিমান্ড নাকচ, কারাগারে পাঠাস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সংবাদ সম্মেলন বয়কট সরোজিনাকে হেনস্তার ঘটনায় মামলা করবেন স্বামীবরিশালে ‘ফেসবুক লাইভে’ গিয়ে যুবকের আত্মহত্যকলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকা দবরিশালে বাসদের চাঁদাবাজি মামলার গ্রেফতার আ’পটুয়াখালীতে খালে পড়ে নিখোঁজ শিশুর লাশ উদ্ধারবরিশালে বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রীর মৃত্যু, পুলিশ অবশেষে ফেরি চলাচলের অনুমতিসাবধান / টাকায় করোনা ভাইরাস“অপরাধ মুক্ত সমাজ বিনির্মানে কাজ করতে চাই R
%d bloggers like this: