বরিশালে আবাসিক এলাকায় করোনা কার্যক্রম বন্ধ করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় সংঘর্ষ ॥ উত্তেজনা

পুলিশের মধ্যস্থতায় বাসদকে ঘড় ছাড়ার জন্য ১ মাস সময় প্রদান

  • আপডেট টাইম : জুলাই ২৯ ২০২০, ১৮:১৬
  • 140 বার পঠিত
পুলিশের মধ্যস্থতায় বাসদকে ঘড় ছাড়ার জন্য ১ মাস সময় প্রদান

শামীম আহমেদ ॥
কয়েক দফা হাতাহাতি, তীব্র উত্তেজনা, রাজনৈতিক কর্মী ও এলকাবাসির মুখোমূখী অবস্থানের পর আইন শৃংখলা বাহিনীর মধ্যস্থতায় এক মাসের সময় পেল বাসদের কারোনকালীন মানবতার সেবা কার্যক্রম। গতকাল দুপুরের পর পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ে ঘন্টা ব্যাপি সমঝোতা বৈঠকের পর এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
আবাসিক এলাকায় করোনাকালীন মানবতার সেবা কার্যক্রমের জন্য বাসদ ফকিরবাড়ি এলাকায় একটি কিন্ডারগার্টেনের কয়েকটি রুম ভাড়া নেয়। তখন থেকেই এলাকাবাসী এটি নিয়ে আতঙ্কগ্রস্থ হয়ে পড়ে। বাড়ির মূল মালিকের কাছ থেকে এটি সাবলেট নিয়ে কিন্ডারগার্টেন পরিচালনা করেন সুজিত কুমরা দেবনাথ এর কাছ থেকে ভাড়া নিয়ে একটি সমাজিক সংগঠনের কাজ শুরু করে ডাঃ মনিষা চক্রবির্ত। পরে এখান থেকে করোনাকালীন মানবতার সেবা কার্যক্রম চালু হয়। আর এতেই বাধে বিপত্তি।

এলাকাবাসীর চাপে সুজিত কুমার দেবনাথ ড’ মনিষা চক্রবর্তীকে ঘর ছেড়ে দেবার নির্দেশ দিলে বেকে বসেন বাসদ নেত্রী। এ নিয়ে কয়েদিন পর্যন্ত উত্তেজনা চলে। এক পর্যায়ে সুজত ককুমর দেবনাথ থানায় অভিযোগ করেন এবং ড” মনিষা চক্রবর্তী সংবাদ সম্মেলন করেন।।
গতকাল সকালে বাসদ নেতা কর্মীরা অভিযোগ করেন, সাবলেট মালিক সুজিত কুমার দেবনাথ দতাদের পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। এ নিয়ে উত্তেজনার এক পর্যায়ে সাবলেট মালিক সািজত কুমার দেবনাথকে অবরুদ্ধএবং তার ভাই বাপ্পি দেবনাথকে মারধোর করার অভিযোগ উঠে।
এদিকে বাসদ জেলা কমিটির সভাপতি প্রকৌশলী ইমরান হাবিব রুমন বলেন, ‘এই কার্যালয়ে আমাদের বিনামূল্যে মানবতার বাজার এবং অক্সিজেন ব্যাংক এবং মানবতার এ্যাম্বুলেন্স কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। এ কারণে এখানে সার্বক্ষনিক কর্মীদের থাকতে হচ্ছে।
নজরুল ইসলাম খান অভিযোগ করেন, ‘আমি এসে রাস্তা এবং পানির লাইন বন্ধ করার কারণ জানতে চাই অধ্যক্ষ সুজিৎ কুমার দেবনাথ এর কাছে। তিনি রাস্তা আটকে দেয়ার কারণে বুধবার রাতে করোনা উপসর্গে অসুস্থ রোগীর অক্সিজেন প্রয়োজন হলেও তা নিয়ে বের হতে পারেনি। এসব বিষয়ে প্রতিবাদ করলে অধ্যক্ষ সুজিৎ ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে মারধরসহ মাটিতে ফেলে গলা চেপে ধরে হত্যার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে বাসদের অন্যান্য নেতা-কর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে আমাকে উদ্ধার করে।

এদিকে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাসদ নেতা-কর্মীরা অধ্যক্ষ সুজিৎ কুমার দেবনাথকে একটি কক্ষের মধ্যে অবরুদ্ধ করে হামলার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে থানা পুলিশের একাধিক টিম ঘটনাস্থলে পৌছে অধ্যক্ষকে তাদের হেফাজতে নেয়ার পাশাপাশি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। পরে পুলিশের উপস্থিতিতেই অধ্যক্ষের ভাই যুবলীগ নেতা ও বরিশাল আদালতের এপিপি সুভাশীষ ঘোষ বাপ্পির উপর হামলা করে বাসদ কর্মীরা। এসময় তাকে মারধর করে পাঞ্জাবী ছিঁড়ে ফেলে।
খবর পেয়ে আইনজীবীর অনুসারী স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে অধ্যক্ষ এবং আইনজীবীকে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে উদ্ধারের চেষ্টা করে। তখন ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের সাথে বাসদ কর্মীদের বাকযুদ্ধ এবং হাতাহাতি ও সংঘর্ষ হয়। পরে পুলিশ এবং স্থানীয় কাউন্সিলর ও মহানগর যুবলীগের আহ্বায়কসহ অন্যান্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
তবে এ নিয়ে সকাল থেকে দুপুর দুইটা পর্যন্ত ফকিরবাড়ি রোড এলাকায় দফায় দফায় উত্তেজনা, হামলা এবং সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় অধ্যক্ষ ও তার ভাইকে প্রায় চার ঘন্টা পরে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে মুক্ত করে নিয়ে যায় পুলিশ।
এদিকে হামলার অভিযোগ প্রসঙ্গে বরিশাল সিটি কলেজের অধ্যক্ষ সুজিৎ কুমার হালদার বলেন, ‘আমি কোন ধরনের হামলা বা মারধর করিনি। বরং নজরুল ইসলাম খান নামের ওই ব্যক্তি এসে আমার সাথে দূর্ব্যবহার এবং শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে। এমনকি আমার ভাইয়ের উপরেও হামলা করে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘বাসদের মানবতার কার্যক্রমের নামে এখানে অসামাজিক কার্যকলাপ চালানো হয়েছে। তাদের করোনা প্রতিরোধ কার্যক্রমের ফলে এলাকার মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। তাই তারা এই কার্যক্রম বন্ধের দাবি জানিয়েছে। এ কারণেই তাদের এই ভবন ছেড়ে দিতে বলা হয়েছে। ভবন ছাড়বে বিধায় একের পর এক নাটক তৈরি করছে তারা।

তবে ডা. মনিষা চক্রবর্তী বলেন, ‘অধ্যক্ষ সুজিৎ কুমার দেবনাথ অধ্যক্ষ নামের একজন চাঁদাবাজ। সে একজন অধ্যক্ষ হয়েও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনা করছে। আমরা তার বিচার চাই। তাছাড়া বাসদ সমর্থকের উপর হামলার ঘটনায় আইনের সহায়তা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

অপরদিকে ঘটনাস্থলে থাকা ১৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর গাজী আক্তারুজ্জামান হিরু বলেন, ‘বাসদ করোনা পরিস্থিতিতে এখানে যে কার্যক্রম পরিচালনা করছে তা নিয়ে এলাকাবাসির মধ্যে ভয় কাজ করছে। তারা মনে করছেন এ কার্যক্রমের মাধ্যমে এলাকাবাসির মধ্যে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়বে। তাই তারা এখান থেকে বাসদের কার্যক্রম গুটিয়ে নেয়ার দাবি জানিয়েছে। আমরাও চাই এখান থেকে এই কার্যক্রম অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হোক।
পড়ে দুপুর দেড়টার দিকে পুলিশ সদস্যরা ঊভয় পক্ষ সহ স্থানীয় কাউন্সিলরকে নিয়ে পুলিশ কমিশনারে কাছে নিয়ে যাওয়া হয়।এব্যাপারে বাসদ সদস্য সচিব ডাঃ মনিষা চত্রবর্তী বলেন, উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) মোক্তার হোসেনের কক্ষে এক আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত গ্রহন করা অন্তত মানবিক ও সামাজিক কর্মকান্ড পরিচালনার জন্য আগামী মাস পর্যন্ত করোনা সামাজিক কর্মকান্ড পরিচালনা করার নির্দেশ দেন।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন,কোতয়ালী উপ-সহকারী পুলিশ কমিশনার মোঃ রাসেল, কোতয়ালী অফিসার ইনচার্চ (ওসি) নুরুল ইসলাম,স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর গাজী আখতারুজ্জামান হিরু,বাসদ জেলা আহবায়ক ইমরান হোসেন রুমন ও সদস্য সচিব ডাঃ মনিষা চক্রবর্তী।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

হালিমা খাতুন স্কুলের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি, বরিশাল







ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
বরিশালে বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রীর মৃত্যু, পুলিশ অবশেষে ফেরি চলাচলের অনুমতিসাবধান / টাকায় করোনা ভাইরাস“অপরাধ মুক্ত সমাজ বিনির্মানে কাজ করতে চাই Rকুয়াকাটার সৈকতে ভেসে আসছে একের পর এক মৃত ডলফিহেফাজতের তাণ্ডব: সরাইল থানার ওসি নাজমুলকে বরউজিরপুরের শিকারপুর খেয়াঘাট তো নয় যেন মরন ফাদ !ঈদের আগেই কল্যঅন ট্রাস্টের টাকা পাচ্ছেন অবসরভরণপোষন চাওয়ায় বৃদ্ধ বাবাকে পিটিয়ে দুই হাত ভখালেদার বিদেশে চিকিৎসার অনুমতি মেলেনিআস‌ছে ক‌রোনার ৩য় ঢেউ/ প‌রি‌স্থি‌তি হ‌তে পা‌গলাচিপায় গরু চুরির গুজব রটিয়ে গণপিটুনি, ৭০ জনজাতীয় দলে ফিরলেন ফিনল্যান্ড প্রবাসী কিংস ডিফখালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার বিষয়ে সিদ্ধান্ঝালকাঠিতে ট্রলির সাথে সংঘর্ষে মোটরসাইকেল আর
%d bloggers like this: