স্বাধীনতার ৫০ বছর পর বিদ্যুৎ পাচ্ছে বরিশালের তিন ইউনিয়নের মানুষ

  • আপডেট টাইম : মে ০২ ২০২১, ০৮:০৫
  • 15 বার পঠিত
স্বাধীনতার ৫০ বছর পর বিদ্যুৎ পাচ্ছে বরিশালের তিন ইউনিয়নের মানুষ

স্বাধীনতার ৫০ বছর পরও বিদ্যুৎ সুবিধা পাননি বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার জাঙ্গালিয়া, চরগোপালপুর ও শ্রীপুর ইউনিয়নের ১০ হাজার মানুষ। অবশেষে নদীবেষ্টিত দুর্গম এই তিন ইউনিয়নের বাসিন্দাদের ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়ার কাজ শুরু হয়েছে। মাসকাটা নদীর তলদেশ দিয়ে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়া হবে ওই তিন ইউনিয়নে।

রোববার (২ মে) দুপুরে মাসকাটা নদীতে এক হাজার ৭০০ মিটার সাবমেরিন ক্যাবল স্থাপনের কাজ উদ্বোধন করেন বরিশাল-৪ (মেহেন্দিগঞ্জ-হিজলা) আসনের সংসদ সদস্য পংকজ নাথ।

এসময় এমপি পংকজ নাথ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হবে। প্রধানমন্ত্রীর সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে মাসকাটা নদীতে সাবমেরিন ক্যাবল স্থাপন করে মেহেন্দিগঞ্জের তিনটি ইউনিয়নে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়ার কাজ শুরু হয়েছে। এতে ১০ হাজার পরিবার বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবেন। আশা করছি দ্রুত এ কাজ শেষ হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-পল্লী বিদ্যুতের মহাব্যবস্থাপক প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান, আলাউদ্দিন আহমেদ, নির্বাহী প্রকৌশলী অনিল কুমার সরকার, উপ-মহাব্যবস্থাপক সাইদুল মুরসালিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম ভুলু, চরগোপালপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান সামসুল বারী মনির প্রমুখ।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

হালিমা খাতুন স্কুলের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি, বরিশাল







ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
বরিশালে ‘ফেসবুক লাইভে’ গিয়ে যুবকের আত্মহত্যকলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকা দবরিশালে বাসদের চাঁদাবাজি মামলার গ্রেফতার আ’পটুয়াখালীতে খালে পড়ে নিখোঁজ শিশুর লাশ উদ্ধারবরিশালে বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রীর মৃত্যু, পুলিশ অবশেষে ফেরি চলাচলের অনুমতিসাবধান / টাকায় করোনা ভাইরাস“অপরাধ মুক্ত সমাজ বিনির্মানে কাজ করতে চাই Rকুয়াকাটার সৈকতে ভেসে আসছে একের পর এক মৃত ডলফিহেফাজতের তাণ্ডব: সরাইল থানার ওসি নাজমুলকে বরউজিরপুরের শিকারপুর খেয়াঘাট তো নয় যেন মরন ফাদ !ঈদের আগেই কল্যঅন ট্রাস্টের টাকা পাচ্ছেন অবসরভরণপোষন চাওয়ায় বৃদ্ধ বাবাকে পিটিয়ে দুই হাত ভখালেদার বিদেশে চিকিৎসার অনুমতি মেলেনিআস‌ছে ক‌রোনার ৩য় ঢেউ/ প‌রি‌স্থি‌তি হ‌তে পা‌
%d bloggers like this: