বরগুনায় মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের সভাপতিও ‘রাজাকার’!

  • আপডেট টাইম : ডিসেম্বর ১৬ ২০১৯, ১২:৪১
  • 150 বার পঠিত
বরগুনায় মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের সভাপতিও ‘রাজাকার’!

মরহুম মো. মজিবুল হক। মৃত্যুর পরও স্থানীয়দের কাছে ‘নয়া ভাই’ নামে পরিচিত তিনি। বঙ্গবন্ধুর সহপাঠী ও বন্ধু ছিলেন মজিবুল হক। দীর্ঘ ৪০ বছর ছিলেন বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। ছিলেন মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের সভাপতিও

এরপরও সদ্য প্রকাশিত রাজাকারের তালিকায় নাম এসেছে তার। এতে ক্ষুব্ধ হয়েছেন স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা। রোববার (১৫ ডিসেম্বর) সচিবালয়সংলগ্ন সরকারি পরিবহন পুল ভবনের ছয়তলায় মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে রাজাকারের তালিকা ঘোষণা করা

পারিবারিক সূত্র ও স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা জানিয়েছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর ছিলেন মো. মজিবুল হক নয়া ভাই। বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে কলকাতার ইসলামিয়া কলেজে পড়াশোনা করেছেন তিনি। বেকার হোস্টেলে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে থেকেছেন মজিবুল হক। মুক্তি সংগ্রাম পরিষদ গঠন থেকে শুরু করে ১৯৭৩ সাল পর্যন্ত পাথরঘাটা সংগঠনের সভাপতি ছিলেন নয়া ভাই। পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের টানা ৪০ বছর সভাপতি ছিলেন তিনি, ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর







ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নুরকে অবাঞ্ছিত ঘোষণাঅ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের মৃত্যুতে জাএমসি কলেজে গণধর্ষণ: গভীর রাতে রাজন গ্রেপ্তারসাহসী নারী লাইজু বেগম‌কে পুরুস্কৃত কর‌লেন বিশুভ জন্মদিন প্রধানমন্ত্রীনলছিটির বৈশাখিয়া টি.এইচ.এম স্কুল এন্ড কলেজে বগলাচিপা হাসপাতালের শিশু ও প্রসূতি ওয়ার্ড ঝুকঅ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আর নেইগৌরনদীতে গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগতিনি একাই সরিয়েছেন ১০ হাজার ২০০ কোটি টাকাবরিশালে ৫০০ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্দশমিনায় পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যুপটুয়াখালীতে জলবায়ু অবরোধ সপ্তাহ উপলক্ষে তরুপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মবার্ষিকী উপলপটুয়াখালী জেলা প্রশাসন উদ্যোগে বিশ্ব পর্যটন
%d bloggers like this: