বরিশাল জুড়ে তোলপাড়

রাজাকারের তালিকায় বরিশালের গেজেটেড মুক্তিযোদ্ধা ও তার মায়ের নাম ॥ তীব্র ক্ষোভ কন্যা বাসদ নেত্রী ডাঃ মনিষা চক্রবর্তীর

  • আপডেট টাইম : ডিসেম্বর ১৬ ২০১৯, ০৮:১৪
  • 198 বার পঠিত
রাজাকারের তালিকায় বরিশালের গেজেটেড মুক্তিযোদ্ধা ও তার মায়ের নাম ॥ তীব্র ক্ষোভ কন্যা বাসদ নেত্রী ডাঃ মনিষা চক্রবর্তীর

স্টাফ রিপোর্টার॥ এই সময়কার বরিশাল রাজপথের সাহসী নেত্রী হিসাবে পরিচিত বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল বাসদের নেত্রী ডা. মনিষা চক্রবর্তীর পিতা তালিকাভূক্ত এবং ভাতা প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. মনিষা চক্রবর্তীর পিতা ও ঠাকুর মাকে রাজাকারের তালিকায় অন্তভ’ক্ত করায় তোলপাড় শুরু হয়েছে বরিশাল জুড়ে। মনিষা চক্রবর্তী এ ঘটনাকে রাজনীতি খেসারত হিসাবে বর্ণনা করেছেন। ফেইসবুকে তার একটি পোষ্ট এরই মধ্যে ভাইরাল হয়েছে। তার পিতা ও ঠাকুর মাকে রাজাকারের তালিকায় অর্ন্তভ’ক্ত করায় তিনি আওয়ামীলীগকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ঐ পোষ্টে।
মহান বিজয় দিবসকে সামনে রখে রোববার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নথি পর্যালোচনা করে প্রথম ধাপে ১০ হাজার ৭৮৯ জন রাজাকারের তালিকা প্রকাশ করেছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। ওই তালিকায় গেজেটেড এক মুক্তিযোদ্ধার নাম পাওয়া গেছে।
ওই মুক্তিযোদ্ধার নাম অ্যাডভোকেট তপন কুমার চক্রবর্তী। যার ক্রমিক নম্বর ১১২, পৃষ্ঠা নম্বর ৪১১৩। তিনি নিয়মিত মুক্তিযোদ্ধা ভাতাও পেয়ে থাকেন। তার বাবাকে রাজাকাররা ধরে নিয়ে হত্যা করে মুক্তিযুদ্ধের সময়। অথচ তপন চক্রবর্তীর মায়ের নামও এসেছে ঐ তালিকায়। এ নিয়ে মনিষা টক্রবর্তী তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

বর্তমান সরকারের সময় র্জাপথে যতটুকু আন্দোলন হচ্ছে তার সিংহভাগ নেতৃত্ব দিচ্ছেন এ্যাড. তপন চক্রবর্তীর কন্যা ডাঃ মনিষা চক্রবর্তী। ডাক্তার হবার পরও তিনি রাজনীতিকেই বেছে নিয়েছেন। তার আন্দোলনেই বরিশালে অটো শ্রমিকরা এখন রাস্তায় অটো নিয়ে নামতে পারছেন, ব্যাটারী চালিত রিকাসাগুলোও চলছে।এমনকি শ্রমিজীবীদের জন্য কাজ করতে গিয়ে পুলিশী নির্যাতন ও কারাবরনও করেছেন। সাধারণ মানুষ বিশেষ করেন শ্রমিকদের কাছে খুবই জনপ্রিয় তিনি।সরকার বিরোধী তার বক্তব্য শুনতে এসব সভা সমাবেশে প্রচুর মানুষের সমাগম ঘটে। বিগত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী ছিলেন তিনি। ভোট জালিয়াতির বিরুদ্ধে তিনি একই রাজপথ কাপিয়েছেন সে সময়। তার পিতা ও ঠাকুর মার নাম রাজকারের তালিকায় অন্তভ’ক্ত হওয়ায় হতভম্ব হয়ে পড়েছেন তিনি।
এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন ডা. মনীষা চক্রবর্ত্তী।

এ ঘটনাকে নিজের ‘রাজনীতির খেসারত’ আখ্যা দিয়েছেন বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ বরিশালের সদস্য সচিব এই মুক্তিযোদ্ধা-কন্যা।
তিনি লেখেন, ‘মানুষের জন্য নিঃস্বার্থ কাজ করার পুরস্কার পেলাম আজ। ধন্যবাদ আওয়ামী লীগকে। সদ্য প্রকাশিত রাজাকারদের গেজেটে আমার বাবা এবং ঠাকুমার নাম প্রকাশিত হয়েছে।’
‘আমার বাবা এড. তপন কুমার চক্রবর্তী একজন গেজেটেড মুক্তিযোদ্ধা, ক্রমিক নং ১১২ পৃষ্ঠা ৪১১৩। তিনি নিয়মিত মুক্তিযোদ্ধা ভাতা ও পেয়ে থাকেন। আজ রাজাকারের তালিকায় তিনি ৬৫ নাম্বার রাজাকার!’
ডা. মনীষা বলেন, ‘আমার ঠাকুরদা এড সুধির কুমার চক্রবর্ত্তীকে পাকিস্তানি মিলিটারি বাহিনী বাসা থেকে ধরে নিয়ে গিয়ে হত্যা করে। তিনিও ভাতাপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃত। তার সহধর্মিণী আমার ঠাকুমা উষা রানী চক্রবর্ত্তীকে রাজাকারের তালিকায় ৪৫ নাম্বারে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।’

এ ব্যাপারে বরিশালে বেশ কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধার সাথে আলাপ করা হলে তারা রাজাকারের সরকারী তালিকার ব্যাপারে মুখ খুলতে রাজি হননি। বীর মুক্তিযোদ্ধ এ এমজি কবির ভুলু শুধু বলেছেন, এ্যাড. তপন কুমার চক্রবর্তীর বাবাকে রাজাকাররা ধরে নিয়ে হত্যা করেছে, এটি সত্য। মুক্তিযোদ্ধা এনায়েত চৌধুরী বলেন, সরকার যে তালিকা করেছে তাতে আমাদের দ্বিমত আছে। আমার যে তালিকা দিয়েছি সেই তালিকার সাথে এর মিল নেই। এটি সংশোধন করা দরকার। সাংস্কৃত্কি ব্যক্তিত্ব, শব্দাবলী গ্রুপ থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাতা সৈয়দ দুলাল এক কথায় বলেছেন, তালিকায় ভুল করে তাদের নাম এসেছে।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

হালিমা খাতুন স্কুলের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি, বরিশাল







ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
ভোলার দৌলতখানে বিনে পয়সায় রোগী দেখছেন ডাঃ রা১২ বছর ও তদূর্ধ্ব ছাত্র-ছাত্রীদের টিকার ব্যবসোহাগ হত্যা মামলা / দুই জনের ফাঁসি ঃ ৪ জনের যাবট্রাক-কাভার্ড ভ্যান শ্রমিকদের ৪৮ঘণ্টা কর্মবআবারো ভেঙে পরলো ব্রিজ ঃ বরিশালের সাথে ৩ রুটেরলেবুখা‌লি সেতু‌ প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন কর‌ববরিশালে নদীগর্ভে বিলীন হতে চলেছে জৈনপুরী বড় নিজের অফিসে গাড়ি কেনার টাকা স্বাস্থ্যসেবায় দখালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়ছে ৬ মাসকুয়াকাটায় সমুদ্রে ১৫ জেলেসহ মাছধরা ট্রলার ডু৭ শতাংশে নামলো করোনায় শনাক্তের হারবরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে আগুন লাগার গুজব ছড়িবঙ্গোপসাগরে সামুদ্রিক সম্পদ জলজ স্তন্যপায়ী লঞ্চঘাট বানান ভুল নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে ক্ষোভনিখোঁজের দু’দিন পর মাঝির মরদেহ উদ্ধার
%d bloggers like this: