সম্মেলনে হাসানাত আব্দুল্লাহকে প্রেসিডিয়াম সদস্য করার দাবী বরিশালবাসীর

  • আপডেট টাইম : ডিসেম্বর ২০ ২০১৯, ০২:৩৩
  • 108 বার পঠিত
সম্মেলনে হাসানাত আব্দুল্লাহকে প্রেসিডিয়াম সদস্য করার দাবী বরিশালবাসীর

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাগ্নে পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন পরীবিক্ষণ কমিটির আহবায়ক (মন্ত্রী) ও বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিংহ পুরুষ খ্যাত জাতীয় নেতা আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ এমপিকে আওয়ামী লীগের আসন্ন কাউন্সিলে প্রেসিডিয়াম সদস্য হিসেবে দেখতে চায় আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মী-সমর্থক ও শুভানুধ্যায়ী সহ গোটা বরিশাল বাসী।

দুঃসময়ের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতা পার্বত্য শান্তির চুক্তির প্রণেতা আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ তার মেধা.মনন,শৈলী, প্রজ্ঞা ও রাজনৈতিক দূরদর্শিতা দিয়ে আ’লীগকে বরিশাল সহ গোটা দক্ষিনা লে শক্তিশালী ও সুদৃঢ় ভিত্তির ওপর দাঁড় করিয়ে এক অপ্রতিদ্বন্ধী রাজনৈতিক দলে রূপান্তর করেছেন। তার নেতৃত্বে আ’লীগ নেতা-কর্মীদের সাংগঠনিক তৎপরতায় এ অ লে বিএনপি-জামায়াত’র নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট অনেকটা অস্তিত্বহীণ হয়ে পড়েছে।বরিশালের সকল উপজেলা ও জেলা পরিষদ, ইউনিয়ন পরিষদ এবং পৌরসভা নির্বাচনে আ’লীগ প্রার্থীদের বিজয়ী করতে পলিসি মেকারের ভূমিকায় অবর্তীণ হন বঙ্গবন্ধুর অবিনাশী আদর্শের এ নেতা। রাত-দিন একাকার করে তিনি আ’লীগকে সুসংগঠিতও দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে শহর থেকে গ্রাম আর গ্রাম থেকে গ্রামান্তর ছুঁটে বেড়ান। তার দূরদর্শিতায় বরিশালের সব জনপ্রতিনিধি এখন আ’লীগের।

শুধু বরিশালেই নয় জাতীয় রাজনীতিতে তার সরব উপস্থিতিও রয়েছে। ১৯৯৭ সালে অশান্ত পার্বত্য অ লে শান্তির সুবাতাস বইয়ে দিতে ‘শান্তি চুক্তি’ সম্পাদনের মাধ্যমে তৎকালীণ জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ অগ্রণী ভূমিকা পালণ করে বঙ্গবন্ধু তনয়া প্রধানমন্ত্রী ও আ’লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার পাশাপাশি ইতিহাসের পাতায় তারও নাম লিখিয়েছেন। ওই সময় আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয কংগ্রেসে চেয়ারম্যান হবার শতভাগ সম্ভাবনার পরেও শেখ ফজলূল করিম সেলিমের মা, তার খালা ও বঙ্গবন্ধুর বোনের কথায় আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ তার প্রার্থীতা প্রত্য্হাার করে চেয়ারম্যান পদে শেখ ফজলুল করিম সেলিমকে নির্বাচিত হওয়ার সুযোগ করে দিয়ে ত্যাগের দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন।

প্রসঙ্গত আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ যুবলীগের ওই সম্মেলন (কংগ্রেস) প্রস্তুতি কমিটিরও চেয়ারম্যান ছিলেন। ১৯৭১ সালে মামা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহবানে সাড়া দিয়ে সেই সময়ের সাহসী টগবগে যুবক আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ স্বাধীনতার লাল সূর্য ছিনিয়ে আনতে বরিশাল অ লে মুজিব বাহিনী প্রধান হিসেবে মৃত্যুকে পায়ের ভৃত্য মনে করে সন্মূখ সমরে জীবন পণ লড়াই করে স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ বির্নিমানে অগ্রণী ভূমিকা পালণ করেন।

স্বাধীনতার পর তিনি বরিশাল পৌরসভার সফল ও জনপ্রিয় চেয়ারম্যান হিসেবে উন্নয়ন কর্মকান্ডে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন। পরবর্তীতে বরিশাল-১(আগৈলঝাড়া-গৌরনদী) আসনে বার বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে গোটা বরিশাল অ লে উন্নয়নের রূপকার হিসেবে আর্বিভূত হন। বরিশাল সিটি কর্পোরেশেন, বিভাগ, শিক্ষা বোর্ড, বিশ্ববিদ্যালয়, পায়রা গভীর সমুদ্র বন্দর, পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র,শেখ হাসিনা সেনানিবাস প্রতিষ্ঠা, দোয়ারিকা-শিকারপুর ও দপদপিয়া ব্রিজ নির্মাণ সহ গোটা বরিশালের সার্বিক উন্নয়নে তার অপরিসীম ভূমিকা রয়েছে।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট কালরাতে রক্তঝড়া অচিন্তনীয় বিয়োগান্তুক অধ্যায়ের শোকগাথাঁয় মামা জাতির জন্ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরিবারের সঙ্গে বাবা তৎকালীণ কৃষিমন্ত্রী ও কৃষক কুলের নয়নের মনি আব্দুর রব সেরনিয়াবাত ও নিজের শিশু পুত্র সুকান্ত আব্দুল্লাহ সহ পরিবারের অনেক স্বজনকে হারান তিনি। সেদিন রাতে মৃত্যুর দুয়ার থেকে আল্লাহ রাব্বুল আল আমিনের অপার কৃপায় অলৌকিকভাবে আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ,বুলেটবিদ্ধ স্ত্রী শাহানারা আব্দুল্লাহ ও তার কোলে থাকা দেড় বছরের শিশু পুত্র আজকের বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ বেঁচে যান।

শরীরে ৫টি বুলেট বহন করে অসহ্য যন্ত্রনা নিয়ে শাহানারা আব্দুল্লাহ স্বামী আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর মতো আ’লীগের সুখ-দুঃখের অংশীদার। ৭৫’র পর সেনাশাসক জিয়াউর রহমান, স্বৈরশাসক এরশাদ ও বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার আমলে (৯১-৯৬ ও ২০০১-২০০৬) মিথ্যা মামলা সহ নানা ভাবে আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ ও তার পরিবারকে হয়রানির শিকার হতে হয়।

১/১১’র সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার আমলেও ষড়যন্ত্রের শিকার হন তিনি। সকল ষড়যন্ত্রের মধ্যেও আ’লীগের দুঃসময়ের কান্ডারির ভূমিকায় অবর্তীণ হয়ে বরিশালে আ’লীগকে সুসংগঠিত করে রেখে দলীয় নেতা-কর্মীদের আস্থা ও বিশ্বাসের প্রতীক হিসেবে নিজেকে সুপ্রতিষ্ঠিত করেছেন।

বরিশালে আ’লীগ মানেই হাসানাত ভাই। তার নেতৃত্বে দক্ষিনা লে সুসংগঠিত ও সুশৃঙ্খল আ’লীগ চলছে দূরন্ত ও দূর্বার গতিতে। আসন্ন কাউন্সিলে আ’লীগের কিংমেকার বলে খ্যাত বর্ষিয়ান জননেতা আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ এমপিকে আ’লীগের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারিত মন্ডলী প্রেসিডিয়ামে দেখতে চান গোটা বরিশালবাসী। অভিজ্ঞ মহলের ধারণা চেহারার অবয়বে বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছায়া জননন্দিত নেতা আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহকে ইতিহাস ও ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক আ’লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য নির্বাচিত করলে তার রাজনৈতিক দূরদর্শিতা,সততা,মেধা,বিশ্বস্ততা,প্রজ্ঞা ও অভিজ্ঞতা দিয়ে দলকে সাংগঠনিক ভাবে আরও শক্তিশালী করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২০২১ ও ২০৪১ সালের রূপকল্প বাস্তবায়ন করে ক্ষুধা,দারিদ্র,সন্ত্রাস,জঙ্গিবাদ-দুর্নীতিমুক্ত, শোষন ও বৈষম্যহীণ স্বপ্নের অসা¤্রদায়িক সোনারবাংলা বির্নিমাণে বিশেষ ভূমিকা রাখতে পারবেন।

বরিশালের আ’লীগ নেতা-কর্মী ও সর্তীথজনদের বিশ্বাস জননেত্রী দেশরতœ প্রধানমন্ত্রী ও আ’লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা তার বিচক্ষন্নতা দিয়ে দুঃসময়ের ত্যাগি ও পরীক্ষিত নেতা আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহকে তার ত্যাগ ও যোগ্যতার যথার্থ মূল্যায়ন করবেন।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

হালিমা খাতুন স্কুলের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি, বরিশাল







ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
ভোলার দৌলতখানে বিনে পয়সায় রোগী দেখছেন ডাঃ রা১২ বছর ও তদূর্ধ্ব ছাত্র-ছাত্রীদের টিকার ব্যবসোহাগ হত্যা মামলা / দুই জনের ফাঁসি ঃ ৪ জনের যাবট্রাক-কাভার্ড ভ্যান শ্রমিকদের ৪৮ঘণ্টা কর্মবআবারো ভেঙে পরলো ব্রিজ ঃ বরিশালের সাথে ৩ রুটেরলেবুখা‌লি সেতু‌ প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন কর‌ববরিশালে নদীগর্ভে বিলীন হতে চলেছে জৈনপুরী বড় নিজের অফিসে গাড়ি কেনার টাকা স্বাস্থ্যসেবায় দখালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়ছে ৬ মাসকুয়াকাটায় সমুদ্রে ১৫ জেলেসহ মাছধরা ট্রলার ডু৭ শতাংশে নামলো করোনায় শনাক্তের হারবরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে আগুন লাগার গুজব ছড়িবঙ্গোপসাগরে সামুদ্রিক সম্পদ জলজ স্তন্যপায়ী লঞ্চঘাট বানান ভুল নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে ক্ষোভনিখোঁজের দু’দিন পর মাঝির মরদেহ উদ্ধার
%d bloggers like this: