বরিশালে ৩ লক্ষাধিক শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাবার কর্মসূচির উদ্ধোধন

  • আপডেট টাইম : জানুয়ারি ১১ ২০২০, ১১:৫১
  • 915 বার পঠিত
বরিশালে ৩ লক্ষাধিক শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাবার কর্মসূচির উদ্ধোধন
সংবাদটি শেয়ার করুন....

শামীম আহমেদ ॥ বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ৩০টি ওয়ার্ড সহ জেলার ১০ উপজেলায় ৩ লক্ষ ৬০ হাজার শিশুকে জাতীয় ভিটমিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাবার কর্মসূচি উদ্ধোধন করা হয়েছে।

আজ শনিবার (১১ই) জানুয়ারী সকাল সাড়ে নয়টায় বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের আয়োজনে নগরীর কালী বাড়ি রোডস্থ মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে শিশুদের ভিটামিন টিকা খাওয়ানোর মাধ্যমে একর্মসূচির উদ্ধোধন করেন বরিশাল জেলা প্রশাসক এস.এম অজিয়র রহমান।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিসিসি প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ইসরাইল হোসেন, বিসিসি স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ ফয়সাল হাজবুন,বিসিসি মেডিকেল অফিসার ডাঃ মঞ্জরুল ইমাম,ডাঃ নাহিদ হাসান,মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ ডাঃ গাজী সামসুল আলম মা ও কল্যাণ কেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার ডাঃ রাজিয়া বেগম ও বিসিসি এপিপি মোঃ কবীর হোসেন।

বরিশাল সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ ফয়সাল হাজবুন জানান, শনিবার ১১ জানুয়ারি বরিশাল সিটি কপোরেশনের আওতায় ২২০ টি কেন্দ্রের মাধ্যমে ৪৯ হাজার ৬১০ জন শিশুকে এই ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। এর মধ্যে এর মধ্যে ০৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ৫ হাজার ১ শত জন শিশুকে নীল রঙের ১ লাখ ওট ক্ষমতা সম্পূন্ন
ভিটামিন খাওয়ানো হবে। একই সাথে ১২ থেকে ৫৯ বয়সের ৪৪ হাজার ৫১০ শিশুকে লাল রঙের ২ লাখ ওট ক্ষমতা সম্পূন্ন ভিটামিন খাওয়ানো হবে।

এ কর্মসূচি সফল করতে সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগ, সদর হাসপাতাল, শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি ২৩ টি প্রতিষ্ঠানের ৫ শত জন কর্মী শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর কাজ করবেন।
তিনি জানান, এবারেই প্রথম ক্যাম্পেইন কার্যক্রম অনলাইনে সুপারভিশন করা হবে। ভিটামিন এ ক্যাপসুল শিশুর জন্য সম্পূর্ণ নিরাপদ, তবে ভরা পেটে খাওয়া ভালো, আর যদি কোন শিশু গত ৪ মাসের মধ্যে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খেয়ে থাকে তাহলে তাকে এখন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো যাবে না।

অপরদিকে আজ ১১ জানুয়ারি শনিবার জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন। বরিশাল জেলার ০৬ থেকে ৫৯ মাস বয়সী সকল শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো কর্মসূচি গ্রহন করা হয়েছে। এর মধ্যে ০৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ৩৩ হাজার ১০৫ জন শিশুকে নীল রঙের ১ লাখ ওট ক্ষমতা সম্পূন্ন ভিটামিন খাওয়ানো হবে। পাশাপাশি ১২ থেকে ৫৯ বয়সের ২ লাখ ৭৭ হাজার ৫৩৩ জন শিশুকে লাল রঙের ২ লাখ ওট ক্ষমতা সম্পূন্ন ভিটামিন খাওয়ানো হবে। বরিশালের ১০ উপজেলার ৮৫টি ইউনিয়নের ২৫৫টি ওয়ার্ডে ২ হাজার ২৫০ টি টিকা দান কেন্দ্রের মাধ্যমে এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। বরিশাল সিভিল সার্জনের এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে সেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করবেন মোট ৪ হাজার ১০০ জন কর্মী।

সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত টিকাদান কেন্দ্র খোলা থাকা অবস্থায় শিশুদের টিকা খাওয়ানো হবে। এব্যাপারে জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ মনোয়ার হোসেন বলেন, এ কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে প্রচার প্রচারণা চালানো হয়েছে। এর পাশাপাশি শুক্রবার জুম্মাবাদ সকল মসজিদে ইমামরা জেলাবাসীকে অবহিত করা হয়েছে। অপুষ্টিজনিত অন্ধত্ব থেকে শিশুকে রক্ষা করতে এই ভিটামিনের বিকল্প নেই বলে তিনি মন্তব্য করেন।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
এক কেন্দ্রে ৫৯ পরীক্ষার্থীই ভুয়া , কেন্দ্রসচআমরা মাথা উঁচু করে বিশ্ব-দরবারে এগিয়ে যাব: প্র১০ টাকা কমলো সয়াবিন তেলের দামবিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বাধা দেবে না পঁচাত্তর পরবর্তী এবার সবচেয়ে সুষ্ঠু নির্বাচভোটে কারচুপির দায় স্বীকার, পাকিস্তানে নির্বা১৩ মাসে এক হাজারের বেশি হত্যাকাণ্ড, ৫২৯ জন শিশসারাদেশে ৪৯ জনের করোনা শনাক্তজামিন মেলেনি মির্জা ফখরুলেরবিশেষ অপরাধের বিচার দ্রুত করতে দ্রুত বিচার আইমরান খানের আরও ১৪ বছরের কারাদণ্ড, একই দণ্ড বুযুক্তরাষ্ট্র আবারও বললো নির্বাচন অবাধ ও সুষ্পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের উড়ন্ত জয়জয়পুরহাটে স্কুলছাত্র হত্যা মামলায় ২১ বছর পর বিপিএল থেকে সরে দাঁড়ালেন মাশরাফি
%d