অভিমানের খেসারতে চাকরী হারালেন বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের আজাদ ফারুক

  • আপডেট টাইম : ফেব্রুয়ারি ১৩ ২০২০, ২০:০১
  • 254 বার পঠিত
অভিমানের খেসারতে চাকরী হারালেন বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের আজাদ ফারুক

স্টাফ রিপোর্টার \ অভিমান করে পদত্যাগ দিয়ে ফেঁসে গেলেন বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের সহকারী সচিব একে আজাদ ফারুক। উপ পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের কাঙ্খিত পদ না পেয়ে অভিমান করে গত মাসে তিনি পদত্যাগ দিয়েছিলেন। তবে কর্মচারী সংঘের কয়েক নেতার মধ্যস্থতায় তাকে সহকারী সচিব পদে আসীন করা হয়। গতকাল ছিল পদত্যাগ পত্র সম্পর্কে কর্তৃপক্ষের উত্তর দেবার সর্বশেষ সময়। সেই সময়েই তার পদত্যাগপত্রটি গৃহীত হওয়ায় চাকুরি হারালেন মহানগর বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি এই নেতা।
জানা গেছে এ কে আজাদ ফারুক বরিশাল শিক্ষা বোর্ড প্রতিষ্ঠার পরপরই যশোর শিক্ষা বোর্ড থেকে তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারী হিসাবে বরিশালে যোগ দেন। এ সময় কর্মচারী সংঘের অলিখিত নেতৃত্বে ছিলেন তিনি। কর্মচারীদের নিয়ে একাধিক আন্দোলনের পিছনে কাজ করেছেন এই কর্মচারী। তার প্রমোশনের জন্য বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে সহকারী বিদ্যালয় পরিদর্শক বা সহকারী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকদের কাজে যোগদানে তীব্র বিরোধীতা করা হয়। একজন কর্মকর্তাকে ১০দিন পর্যন্ত যোগ দিতে দেয়া হয়নি। রুম তালাবদ্ধ করে রাখারও অভিযোগ ছিল। এরপরই তিনি সহকারী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক পদে প্রমোশন বাগিয়ে নেন। সম্প্রতি উপ পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অরুণ কুমার গাইন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক হলে তার শূণ্য পদে চোখ যায় ফারুকের। কিন্তু এই পদটি ক্যাডারভ‚ক্ত বলে জানা গেছে। এ কারণে বোর্ডের সব ক্যাডারভ‚ক্ত কর্মকর্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। কেননা আজাদ ফারুক এ বোর্ডের তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারী ছিলেন। তাকে ক্যাডারদের পোষ্টে আসীণ করা হলে ক্যাডারদেরই অপমান করা হত। ফলে তাকে পদটি না দেয়ায় সিদ্ধান্ত হয়। এতে আজাদ ফারুক ক্ষোভে পদত্যাগপত্র দাখিল করেন। ১৪ জানুয়ারী দাখিল করা সেই পত্রে তিনি তিনি ১লা ফেব্রæয়রি থেকে অবসরে যাবার অনুরোধ জানান। নিয়ম মোতাবেক একমাসের মধ্যে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত জানাবার কথা। এরই মাঝে কর্মচারী সংঘের ২ শীর্ষ নেতার তদবীরে আজাদ ফরুককে সহকারী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক থেকে সহকারী সচিব পদে বদলী করা হয়। আজাদ ফারুক ঐ পদে যোগদান করলেও তিনি পদত্যাগপত্রটি প্রত্যাহার করেননি। গতকাল ১৩ ফেব্রæয়ারি ছিল পদত্যাগ পত্র সম্পর্কে সিদ্ধান্ত গ্রহনের শেষ দিন। ঐ দিনই আকস্মিকভাবে তার পদত্যাগপত্রটি গ্রহন করা হয়।
যদিও আজাদ ফারুক জানান, তার পদত্যাগ পত্র গ্রহন করার বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। তিনি ১ ফেব্রæয়ারী থেকে ।কসরে যাবার আবেদন করেছেন। গতকাল ১৩ ফেব্রæয়ারী । মাসের মাঝপথে তার আবেদন গ্রহন করায় তিনি বিস্ময় প্রকাশ করেন। এ ব্যাপারে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানকে একাধিকবার মোবাইলে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

হালিমা খাতুন স্কুলের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি, বরিশাল







ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
বেলভিউ হসপিটাল এন্ড মেডিকেল সার্ভিসেস (প্রাঃবাংলাদেশ ও শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসায় জাপিওন থেকে ‘শিশু বিশেষজ্ঞ’! অপচিকিৎসায় শিশমোটরসাইকেল কিনে না দেওয়ায় জিলা স্কুলের ছাত্বরিশালে দুর্গা পূজায় করোনার ধাক্কামঠবাড়িয়া সাফা ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যভোলায় গলায় ফাস দেয়া অবস্থায় গৃহবধূর মরদেহ উদকার্গো জাহাজের ধাক্কায় মাছধরা ট্রলার ডুবি আসামির শরীরজুড়ে নির্যাতনের চিহ্ন, জুডিশিয়াল বাংলাদেশ ও পাকিস্তানকে সহজেই ‘না’ বলা যায় বরিশালে করোনায় ১ জনের মৃত্যুবরগুনায় আ.লীগ-যুবলীগ নেতাসহ ১২ জন কারাগারেহিজলায় স্কুলে যাওয়ার পথে ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনারাস্তায় সাইড না দেওয়ায় ব্যবসায়ীকে চড় এমপি রিচলতি বছরে ৫জি চালু হবে : জয়
%d bloggers like this: