দরিদ্রদের মুখে দু মুঠো খাবার তুলে দিতে

দিনভর ছুটে বেড়াচ্ছেন জেলা প্রশাসক

  • আপডেট টাইম : এপ্রিল ০৫ ২০২০, ১৯:৫৮
  • 402 বার পঠিত
দিনভর ছুটে বেড়াচ্ছেন জেলা প্রশাসক

স্টাফ রিপোর্টার \ করোনা প্রতিরোধে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, অটো রিকসা বাস বন্ধ থাকায় বেকার হয়ে পড়েছে হাজার হাজার মানুষ। অনাহারে দিন কাটছে তাদের। তাদের দুখে দু মুঠো খাবার তুলে দিতে জেলা প্রশাসনের বিরাম,হীন প্রচেষ্টা নগরবাসী অকুন্ঠ সমর্থন আর অভিনন্দন জানিয়েছে। সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত হেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহানসহ তার সকল কর্মূকর্তা কর্মচারী বস্তির পর বস্তি চষে বেড়াচ্ছেন। গত ২৪ ঘন্টায় ৩০২৯ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেেেছ জেলা প্রশাসন। নগদ ৭ লাখ ৬১ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়েছে। অপর দিকে করোনা রোধে সচেতনতা বৃদ্ধি, সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা, মূল্য বৃদ্ধি রোধেও কাজ করে যাচ্ছে জেলা প্রশাসনের একাধিক টিম।
করোনা হানা দেবার পরপরই সতর্কতা আর সচেতনতা সৃষ্টিতে মাঠে নামে জেলা প্রশাসন। সেই শুরু। বেকার হয়ে পড়া বরিশাল জেলার কয়েক লক্ষ মানুষের মুখে খাবার তুলে দিতে আপ্রান চেষ্টা সবাইকে বিস্মিত করেছে। কি দিন? কি রাত? ছটছেন বস্তি থেকে বস্থিতে। রাস্তার পাশে অভ‚ক্তের কাছে। তার নির্দেশে পুরো জেলার ১০টি উপজেলায় চলছে ত্রান বিতরণ কার্যক্রম। তার অক্লান্ত পরিশ্রম আর নিখুত নজরদারীর কারণে এখন পর্যন্ত ত্রান বিতরণে ওঠেনি কোন অভিযোগ। এটিই একটি ব্যতিক্রম এবং সফলতার অনন্য উদাহরণ হতে পরে।
রোববার বরিশাল জেলার বিভিন্ন উপজেলায় জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে করোনা প্রতিরোধের নিমিত্তে জনসাধারণের গৃহে অবস্থান নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসক এস,এম, অজিয়র রহমানের নির্দেশনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারগ ৩০২৯ টি নিন্ম আয়ের ও কর্মহীন দরিদ্র পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা করেন। এস আর সমাজকল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে পর্যায়ক্রমে ১৩০০ টি পরিবারে ত্রাণ বিতরণ করা হয়। সকালে লাকুটিয়া এলাকায় এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক এস, এম, অজিয়র রহমান। এছাড়াও তিনি ব্র্যাকের সহায়তায় কে,ডি,সি বস্তিতে ১৬৬ টি পরিবারের মাঝে ঘরে ঘরে গিয়ে নগদ ১৫০০ টাকা করে অর্থ সহায়তা প্রদান করেন। তাছাড়াও জনগণের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে জেলা প্রশাসন কর্তৃক মাইকিং কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। পাশাপাশি জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে জেলা শহর এবং উপজেলাসমূহের বিভিন্ন স্থানে জীবাণুনাশক স্প্রে ছিটানো হয়।
রোববার সদর উপজেলার টুঙ্গিবাড়িয়া, চরকাউয়া ও মহানগর এলাকায় ৭০০ অসহায়, দরিদ্র ও কর্মহীন পরিবারের মাঝে ৭ মেট্রিক টন চাল সহ অন্যান্য ত্রাণ সামগ্রী এবং ১,০০,০০০ টাকা বিতরণ করেন সদর উপজেলার সহকারী কমশনার (ভূমি) মোঃ মেহেদী হাসান।
আগৈলঝড়া উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার চৌধুরী রওশন ইসলাম উপজেলার রতœপুর ইউনিয়নের বারপাইকা গ্রামে বাড়ী বাড়ী গিয়ে ২৬ টি কর্মহীন দরিদ্র পরিবারে চালসহ অন্যান্য ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন। এ সময় তিনি সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার নিমিত্তে সকলকে বাড়ীতে থাকার আহ্বান জানান।
বাকেরগঞ্জ উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাধবী রায় উপজেলার কলসকাঠী এবং চরামদ্দি ইউনিয়নে ৭০ টি পরিবারের মাঝে চালসহ অন্যান্য ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন। এ সময় তিনি জনগণকে কোভিড-১৯ নিয়ে সচেতন হওয়ার এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার আহবান জানান।
গৌরনদী উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত জাহান উপজেলার কসবা ইউনিয়নে বেসরকারিভাবে প্রাপ্ত ৬০০ প্যাকেট ত্রাণসামগ্রী ৬০০ টি পরিবারের মাঝে বিতরণ করেন। এ সময় তিনি সবাইকে নিজ গৃহে অবস্থান করার অনুরোধ জানান।


উজিরপুর উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণতি বিশ্বাস উপজেলার হারতা ইউনিয়নে ২০ টি সুবিধা বঞ্চিত পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী এবং ৬,০০০ টাকা বিতরণ করেন।
বানারীপাড়া উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ আব্দুল্লাহ সাদীদ উপজেলার ইলুহার ও বিশারকান্দি ইউনিয়ন এলাকার ৬০০ টি দরিদ্র ও অসহায় পরিবারের মাঝে সরকারী তহবিল থেকে প্রাপ্ত ত্রাণ সামগ্রী এবং অন্যান্য সংস্থা থেকে প্রাপ্ত ত্রাণ সামগ্রী ও নগদ ৪,০০,০০০ টাকা বিতরণ করেন।
বাবুগঞ্জ উপজেলা রহমতপুর ও চাঁদপাশা ইউনিয়নে করোনা পরিস্থিতির কারণে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায়, দরিদ্র ও কর্মহীন ২৫ টি পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন সহকারী কমশনার (ভূমি) নুসরাত জাহান।
মুলাদী উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার শুভ্রা দাস সরকারি তহবিল এবং স্থানীয়ভাবে প্রাপ্ত সর্বমোট ১৯২ প্যাকেট ত্রাণ সামগ্রী উপজেলার পৌরসভা এলাকা ও শফিপুর ইউনিয়নে ১৯২ টি দরিদ্র ও অসহায় পরিবারের মাঝে বিতরণ করেন।
মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার পিজুস চন্দ্র দে পৌরসভার উত্তর বাজার ও খোরকি এলাকায় এবং চরএককোরিয়া ইউনিয়নে ৬০০ টি দরিদ্র ও অসহায় পরিবারের মাঝে ৩.০ মেট্রিক টন চালসহ অন্যান্য ত্রাণ সামগ্রী এবং স্থানীয়ভাবে প্রাপ্ত ৩০০ প্যাকেট ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন।
হিজলা উপজেলায় মাননীয় সংসদ সদস্য পংকজ নাথের উপস্থিতিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আমীনুল ইসলাম হিজলা উপজেলার গুয়াবাড়ী ইউনিয়নে কর্মহীন দিনমজুর ও অসহায় ৩০ টি পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী এবং নগদ ৬,০০০ টাকা বিতরণ করবেন।
জেলাব্যাপী পরিচালিত ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম, মোবাইল কোর্ট এবং করোনা প্রতিরোধে গৃহীত অন্যান্য কার্যক্রম প্রতিনিয়ত তদারকি করছেন জেলা প্রশাসক এস, এম, অজিয়র রহমান। তিনি জানান যে, করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় জেলা প্রশাসন বরিশালের এ সকল কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। জেলার দরিদ্র ও কর্মহীন অসহায় পরিবারের ঘরে ঘরে গিয়ে ত্রাণ পৌঁছে দেয়ার অভিপ্রায় ব্যক্ত করে তিনি সকলকে ঘরে থাকার অনুরোধ করেন। তিনি সমাজের বিত্তবানদের দরিদ্র ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর







ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
৯৯৯ নম্বরে ফোন করে ধর্ষণ থেকে রক্ষা পেল ভান্ডআগৈলঝাড়ায় কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ। ৫ জনের বিরুদ্মনপুরা বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৪২তম প্ফ্রান্সে বিশ্ব নবী হযরত মুহম্মাদ (সাঃ) কে অবমাবরিশাল বিএনপির অন্তঃকোন্দলের ছায়া যুবদলেও ॥ রিফাত হত্যা মামলায় অপ্রাপ্তবয়স্ক ১১ আসামির সঝালকাঠিতে পুলিশের বাধায় যুবদলের প্রতিষ্ঠাববরিশালে নৌ পু‌লি‌শের ওপর হামলাজানুয়ারিতে ক্লাস শুরুর পরিকল্পনা৫ দিন ইন্টারনেটের গতি কিছুটা ধীর থাকতে পারেমা দুর্গার বিসর্জনে ছিল না শোভাযাত্রা-আনন্দ গলাচিপায় বেপজার রপ্তানী প্রক্রিয়জাত অঞ্চল ককরোনায় পর্যটকদের কাছে কুয়াকাটার আকর্ষণ একটুপটুয়াখালীতে র‌্যাংগস ইন্ডাস্ট্রিজের র‌্যাংজেলা পরিষদ সদস্য ফিরোজ শিকদার কলাপাড়ার দূর্
%d bloggers like this: