গৌরনদীতে করোনায় আক্রান্ত বৃদ্ধা নিখোজ ॥ তোলপাড়

  • আপডেট টাইম : এপ্রিল ১৩ ২০২০, ১৯:৩৯
  • 163 বার পঠিত
গৌরনদীতে করোনায় আক্রান্ত বৃদ্ধা নিখোজ ॥ তোলপাড়

স্টাফ রিপোর্টার॥ বিকালে জানা গেল তার রিপোর্ট পজেটিভ। সব মিডিয়া হুমড়ি খেয়ে পড়ল। কিন্তু গৌরনদী থেকে স্থানীয় প্রশাসন বা স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা রহস্যজনকভাবে নিরাবতা পালণ করতে থাকেন। অপর দিকে সংবাদটি জানতে পেরে টরকি এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়। কিন্তু স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ধরণের কোন রোগি নেই। তার বাড়িতেও তাকে কেউ খুজে পাচ্ছে না। শেষ পর্যন্ত জানা গেল বৃদ্ধা নাকি পালিয়ে ঢাকা চলে গেছে। স্বাস্থ্য কর্মকর্তা কর্মচারীর চরম গাফিলতিতে শতশত মানুষ এখন করোনায় আক্রান্ত হবার উপক্রম হয়েছে।
বিকালে মিডিয়ায় করোনা আক্রান্ত বৃদ্ধার রিপোর্টটি চলে আসার পরপরই সবার দৌড়ঝাপ শুরু হয়। রিপোর্টে উল্লেখ রয়েছে পরীক্ষার স্যাম্পল সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠিয়েছে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্র। বরিশাল থেকে ফোন করা হয় উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। কিন্তু কেউ ফোন রিসিভ করেনি। গৌরনদীর সাংবাদিকরা ছুটে যান স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। কিন্তু হাসপাতালে ঐ নামের কেউ নেই। খোজ চলে রিপোর্টে উল্লেখ করা ঠিকানায়। কিন্তু বাড়ি আছে, বৃদ্ধা নেই। কেউ বলতে পারছেন না। পরে জানা গেল বৃদ্ধা পালিয়ে ঢাকা চলে গেছেন। পিলে চমকে ওঠার মত ঘটনা।কিভাবে ঘটল?

গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সাঈয়্যেদ মুহাম্মদ আমরুল্লাহ জানান, গৌরনদী পৌর এলাকার সুন্দরদী মহল্লার (টরকী বন্দর) ওই নারী ও তার স্বামী ঢাকায় জামাতা বাড়িতে ছিলেন। গত ৯ এপ্রিল ঢাকা থেকে বাড়িতে আসেন। বাড়িতে আসার পরে ঢাকা থেকে নারীর জামাতা পরিচয় দিয়ে একজন মোবাইলে জানান, তার শ্বাশুড়ির করোনা উপসর্গ নিয়ে বাড়িতে গেছে। জামাতা পরিচয় দানকারী শ্বশুরীর ঠিকানা দিয়ে বিষয়টি গোপন রেখে পরীক্ষা করার অনুরোধ জানান। স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বলেন, ওই তথ্য অনুযায়ি গত ১১ এপ্রিল ওই নারীর সুন্দরদী বাড়িতে গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করে বরিশালের মাধ্যমে ঢাকায় পাঠানো হয়। গতকাল সোমবার রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পরে করোনা পজেটিভ সনাক্ত হয়। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও বরিশাল সিভিল সার্জনকে অবহিত করা হয়েছে।
রিপোর্ট পজেটিভ হবার পরপরই প্রশাসন ঐ বাড়িতে ছুটে যায়। কিন্তু মহিলাকে পাওয়া যায়নি। জানা গেছে তিনি স্যাম্পল দিয়েই আবার ঢাকা চলে গেছেন। ঢাকার কোন ঠিকানা কেউ বলতে পারছেন না। কেউ বলছেন, তিনি জামাতার বাড়ি চলে গেছেন, কিন্তু সেই ঠিকানা পাওয়া যায়নি। কেউ ভরছেন তিনি বারডেমে বর্তি ছিলেন। এখন নেই। একজন করোনা আক্রান্ত মহিলা এখন অবাদে ঘুরে বেড়াচ্ছেন এটি নিয়ে আতঙ্কিত সবাই।
গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ইসরাত জাহান এ প্রসঙ্গে মিডিয়াকে বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বিষয়টি সোমবার বিকেলে আমাকে অবহিত করেছে। ওই বাড়ি লকডাউনসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

হালিমা খাতুন স্কুলের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি, বরিশাল







ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের লঞ্চ চলাচল বন্ধবাকেরগঞ্জের ওসিসহ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্পিরোজপুরে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মবরিশালে ভূমি ও গৃহহীন ৫৪৯টি পরিবারের মাঝে ঘর সারা দেশে ব্যাটারি চালিত রিকশা বন্ধের সিদ্ধাজুলাইয়েও খুলছে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানবরিশাল বিভাগে করোনায় একদিনে ৪ জনের মৃত্যু, নতঅটো প্রমোশন পেলে অনার্স প্রথম বর্ষের ৩ লক্ষবাংলাদেশি পাসপোর্ট হাতে পেলেন নাইজেরিয়ান স্আরো এক মাসের লকডাউন / যুক্ত হলো যেসব নির্দেশনাবরিশালে পৌঁছেছে “সিনোভ্যাক” এর ৩৯ হাজার ৬ শত বরিশাল ওয়ালটন এস ডি এস ইলেকট্রনিক্স শো রুমে ডআমতলীতে একই স্থানে আ’লীগের দু’গ্রুপে সমাবেশ মানব জমিনের সাংবাদিক হেনস্তকারী ববির সেই ছা৭ মাস কারা‌ভো‌গের পর জা‌মিন পে‌লেন বরিশাল স
%d bloggers like this: