লালমোহনের ২ ইউপিসদস্যসহ

ত্রাণ আত্মসাতের অভিযোগে মেহেন্দিগঞ্জ, পাথরঘাটার ২ ইউপি চেয়ারম্যান বরখাস্ত

  • আপডেট টাইম : এপ্রিল ১৫ ২০২০, ১৮:২৪
  • 95 বার পঠিত
ত্রাণ আত্মসাতের অভিযোগে মেহেন্দিগঞ্জ, পাথরঘাটার ২ ইউপি চেয়ারম্যান বরখাস্ত

ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম ও আত্মসাতের অভিযোগে ৪ জন ইউপি চেয়ারম্যান ও ৫ জন ইউপি সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়। আজ মন্ত্রণালয় হতে এ সংক্রান্ত পৃথক পৃথক প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। সাময়িক বরখাস্তকৃত চেয়ারম্যানবৃন্দ হলেন পাবনা জেলার বেড়া উপজেলার ঢালারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ কোরবান আলী, সিরাজগঞ্জ জেলার রায়গঞ্জ উপজেলার পাঙ্গাসী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুস সালাম, বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলার কাকচিড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আলাউদ্দিন পল্টু, বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার ১ নং আন্দারমানিক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী শহিদুল ইসলাম।

সাময়িক বরখাস্তকৃত সদস্যগণ হলেন কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার উপজেলার সুবিল ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নং ওয়ার্ডের সদস্য মোঃ আব্দুল মান্নান মোল্লা, ঢাকা জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার নয়নশ্রী ইউনিয়ন পরিষদের ১ নং ওয়ার্ডের সদস্য মোঃ সেকান্দার মিয়া, কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৮ নং ওয়ার্ডের সদস্য মোঃ সোহেল মিয়া, ভোলা জেলার লালমোহন উপজেলার ১ নং বদরপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৬ নং ওয়ার্ডের সদস্য মুহাম্মদ ওমর এবং একই ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের সদস্য মোঃ জুয়েল মিয়া।

প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয় তারা করোনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট সঙ্কট মোকাবেলায় সরকার কর্তৃক প্রদত্ত খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল আত্মসাৎ, ভিজিডির চাল আত্মসাৎ ও জাটকা আহরণ বিরত থাকা জেলেদের জন্য সরকার কর্তৃক প্রদত্ত খাদ্যশস্য বিতরণ না করে আত্মসাতের কারণে গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে আছেন। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে।

এর আগে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো: তাজুল ইসলাম ত্রাণ বিতরণে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান সমূহের জনপ্রতিনিধি ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেয়ার ঘোষণা দেন। এ বিষয়ে মন্ত্রণালয় থেকে অফিস আদেশ জারি করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১২ এপ্রিল একজন ইউপি চেয়ারম্যান ও দুইজন সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছিল।
আজ আরো ৪ জন চেয়ারম্যান ও ৫ জন সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো। একইসময় পৃথক পৃথক কারণ দর্শানো নোটিশে কেন তাদেরকে চূড়ান্তভাবে তাদের পদ থেকে অপসারণ করা হবে না তার জবাব পত্র প্রাপ্তির ১০ কার্যদিবসের মধ্যে স্ব স্ব জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্থানীয় সরকার বিভাগে প্রেরণের জন্য অনুরোধ করা হয়।
উল্লেখিত চেয়ারম্যান ও সদস্যগণ কর্তৃক সংঘটিত অপরাধ মূলক কার্যক্রম জনস্বার্থের পরিপন্থী বিবেচনায় স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ এর ৩৪(১) ধারা অনুযায়ী তাদের স্বীয় পদ হতে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

হালিমা খাতুন স্কুলের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি, বরিশাল







ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
১২ কেজি এলপিজির দাম কমল ৮৫ টাকাবর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে বরিশালে পার্বত্য ভবিষ্যতে গাড়িতে আগুন দিলে শাস্তি দেয়া হবে: প্বাংলাদেশে আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’আগৈলঝাড়ায় খ্রিষ্টান দেব প্রসাদ হত্যা ॥ ৭ মাসআইপিএল থেকে বাদ পড়লেন সাকিব ও মোস্তাফিজপিরোজপুরে লঞ্চের সাথে ট্রলারের ধাক্কায় নিহত খালেদা জিয়ার লিভার সিরোসিসচক্রান্ত-ষড়যন্ত্র থাকবে, তবু দেশ এগিয়ে যাবে: পবাংলাদেশের মিষ্টি সকাল ॥ দুর্দান্ত দুপুর ॥ বখালেদা জিয়া সরকারের কাস্টডিতে নেই: আইনমন্ত্রআগৈলঝাড়ায় কলেজছাত্রীর লাশ উদ্ধারবরিশালে নির্বাচনি আচরণবিধি লঙ্ঘন করায় আটক ৯৩৩৩ তে ফোন করা ১০০০ পরিবারের মাঝে প্রধানমন্তগৌরনদীতে বিএনপি নেতাদের ওপর ছাত্রলীগ ও যুবলী
%d bloggers like this: