পটুয়াখালীতে লকডাউন কার্যকরে মাঠে নেমেছে প্রশাসন, র‌্যাব ও পুলিশ

  • আপডেট টাইম : এপ্রিল ২০ ২০২০, ১৮:০৩
  • 88 বার পঠিত
পটুয়াখালীতে লকডাউন কার্যকরে মাঠে নেমেছে প্রশাসন, র‌্যাব ও পুলিশ

পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ মরনঘাতী করোনা ভাইরা কোভিড-১৯ সংক্রমন বিস্তারের আশঙ্কায় পটুয়াখালী জেলাকে লকডাউন চলছে।করোনা ভাইরা কোভিড-১৯ সংক্রমন প্রতিরোধে চলমান লকডাউন কার্যকর করার লক্ষ্যে মাঠে নেমেছে প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও র‌্যাব। গতকাল ২০ এপ্রিল সোমবার সকালে সরকারী নির্দেশ অমান্য করে কিছু অটোরিক্সা, অটোবাইক, মোটর সাইকেল চলাচল শুরু করলে প্রশাসনের কয়েকজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ প্রশাসন ও র‌্যাব এর কর্মকর্তাদের নেতৃত্বে পৃথক অভিযান পরিচালনা করে সামাজিক দুরত্ব নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়।

সকাল ১০টায় শহরের নতুনবাজার, সদর রোড, নিউমার্কেট, চৌরাস্তাসহ বিভিন্ন এলাকায় সামাজিক দুরত্ব রক্ষায় অভিযান পরিচালনা করেন। সদর রোডে র‌্যাব-৮ পটুয়াখালী ক্যাম্পের কোম্পানী
কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রইছ উদ্দিন এর সহায়তায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইবনে আল জায়েদ হোসেন ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিলারা
আকতার এর নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে একাধিক মোটর বাইক চালক ও যাত্রীকেসহ অচোবাইক চালক এবং অপ্রয়োজনে চলাচলকারী পথচারীদের অর্থ দন্ড করেন। পুলিশ প্রশাসনের নেতৃত্বে জেলা শহরে প্রবেশদ্বারে চৌরাস্তায় অভিযান চালানো হয়।

বাংলাদেশ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ১৬ এপ্রিল সমগ্র বাংলাদেশকে সংক্রমনের ঝুঁকিপুর্ন এলাকা ঘোষনা করায় পটুয়াখালী জেলা সংলগ্ন জেলাগুলোতে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় গতকাল ১৯ এপ্রিল রবিবার দুপুরে জেলা প্রশাসক মোঃ মতিউল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ সংক্রমন ও
প্রতিরোধসহ সার্বিক ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে এবং সিভিল সার্জন পটুয়াখালীর সুপারিশের আলোকে প্রানঘাতী নোভেল করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ এর সংক্রমন ঝুকি মোকাবেলায় সংক্রমন রোগ প্রতিরোধ নিয়ন্ত্রন ও নির্মূল আইন ২০১৮ এর ১১(১)(২)(৩) ধারা মোতাবেক পটুয়াখালী জেলাকে পরবর্তী নির্দেশ
না দেওয়া পর্যন্ত অবরুদ্ধ (লকডাউন) ঘোষনা করে জেলা প্রশাসন। উক্ত লকডাউন বা অবরুদ্ধকালিন সময়ে পটুয়াখালী জেলায় সড়কপথে, নৌপথে ও আকাশপথে জনসাধারনের আগমন-বর্হিগমন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। জেলা অভ্যন্তরে আন্তঃ উপজেলা যাতায়াতের ক্ষেত্রেও একইরুপ নিশেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে। সকল ধরনের গণপরিবহন জনসমাগম নিষিদ্ধ করা
হয়েছে। তবে জরুরী পরিসেবা চিকিৎসাসেবা, কৃষিপন্য, খাদ্য সরবরাহ ও সংগ্রহ, বিদ্যুত, গ্যাস, ফায়ার সার্ভিস, টেলিফোন, ইন্টারনেট, ব্যাংকিং, মোবাইল ব্যাংকিং, ঔষধ শিল্প সংশ্লিস্ট যানবাহন
কর্মী ইত্যাদি এবং সরকার কর্তৃক সময়ে সময়ে ঘোষিত অন্যান্য জরুরী পরিসেবা এবং আওতা বর্হিভুত থাকবে। জনস্বার্থে জারিকৃত এ আদেশ ১৯ এপ্রিল রবিবার সন্ধ্যা ৬ টা হতে কার্যকর হবে এবং
পরবর্তী আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। এ আদেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করার সিদ্ধান্ত গ্রহীত হয়।

উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদ সদস্য সাবেক ধর্ম প্রতিমন্ত্রী এ্যাডভোকেট মোঃ শাহজাহান মিয়া, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মঈনুল হাসান পিপিএম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান মোহন, সিভিল সার্জন ডাঃ মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, পৌরসভার মেয়র মহিউদ্দিন
আহমেদ, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট গোলাম সরোয়ার, র‌্যাব-৮ পটুয়াখালী ক্যাম্পের কমান্ডার মোঃ রইছ উদ্দিনসহ অন্যান্য কর্মকর্তা ও
কমিটির সদস্যবৃন্দ।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

হালিমা খাতুন স্কুলের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি, বরিশাল







ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
রমজা‌নে‌ওে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলাশিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে ৩০ মার্চচলে গেলেন মিডিয়াঙ্গনের পরিচিত মুখ মুরাদ হোসেযুক্তরাষ্ট্রে আবারও চালু হল গ্রিন কার্ডএকসঙ্গে বিষপান করে প্রেমিকের মৃত্যু, প্রেমিকসংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রীবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোরের প্রতিবেদন মুছতে ব‌রউন্নীত হচ্ছে সরকারি কর্মচারীদের গ্রেড ও বেতননির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি ৬ মেয়হিন্দু সেজে দুই বিয়ে করলো ইউসুফ, অতঃপর…১০ মাসে আত্মহত্যায় মৃত্যু ১১ হাজার, করোনায় ৫ হবরিশালে ইশরাকের সামনে বিএনপির দুই গ্রুপের চেশেষ মুহুর্তে বিএনপির সমাবেশ স্থল পরিবর্তন করতথ্য গোপন করায় দু’বছর পর পদ হারালেন উপজেলা চেকলেজ-বিশ্বদ্যিালয়ে ভর্তির আগে ডোপ টেস্ট করা
%d bloggers like this: