বানারীপাড়ায় মারধরের ৯ দিনের মাথায় যুবকের মৃত্যু’র অভিযোগ

  • আপডেট টাইম : এপ্রিল ২০ ২০২০, ২১:৪৮
  • 50 বার পঠিত
বানারীপাড়ায় মারধরের ৯ দিনের মাথায় যুবকের মৃত্যু’র অভিযোগ

মো. সুজন মোল্লা, বানারীপাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি॥ বরিশালের বানারীপাড়ায় মারধরের ৯ দিনের মাথায় এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সরেজমিনে গিয়ে জানাগেছে ওই যুবক এলাকায় একজন মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত ছিলো। তবে আইন কারো হাতে তুলে নেয়ার বিধান নেই। সে মাদক ব্যবসায়ী হলে তাকে আইনের হাতে সোপর্দ করে দিলেই আইনের নিজস্ব গতিতে তার বিচার হতো এটাই বলছেন
এলাকাবাসী। সৈয়দকাঠি ইউনিয়নের নলশ্রী গ্রামের কাওসার (৩৪) নামের এক যুবককে মারধরের ৯ দিনের মাথায় তার মৃত্যুর অভিযোগ ওঠে।

প্রতিবেদন তৈরিতে সরেজমিনে ওই এলাকায় গিয়ে আরও জানা যায় স্থানীয় এক ছাত্রলীগ নেতা ও এক গ্রাম্য চিকিৎসকের কারনে দুই দিনে ৮ যুবককে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ ওঠে। জানা গেছে উপজেলার সৈয়দকাঠি ইউনিয়নের করপাড়া
গ্রামের রাসেল ফকির, শিফাতুল্লাহ, শুক্কুর, মোয়াজ্জেম, রমজান আলী, রহিম, বেল্লাল, আব্দুল্লাহ ও মাইনুল ইসলাম সহ ২০/২৫ জনের একটি দল ১০ এপ্রিল শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বাবুল, মাঈনুদ্দিন ও রিয়াজ নামের তিন
যুবককে করপাড়া এলাকায় পেয়ে বেদম মারধর করে বেঁেধ রাখে। খবর পেয়ে স্থানীয় চৌকিদার আ. খালেক ঘটনাস্থলে এসে বিষয়টি বানারীপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানালে তিনি সেখানে পুলিশ পাঠান। পরে ওই তিন যুবককে গাঁজা সহ থানায় নিয়ে আসা হয়।

চৌকিদার আ. খালেক জানান তিনি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই তিন যুবককে বাঁধা অবস্থায় দেখতে পান। এ সময় তাদের যারা বেঁধে রেখেছিলো তারা চৌকিদারের কাছে ওই তিন যুবকের কাছে পাওয়া গাঁজা ও তাদের তিনটি মোবাইল ফোন জমা দেন। ওই দিনই মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দিয়ে তাদের বরিশাল জেলহাজতে পাঠানো হয়।
এর পরের দিন ১১ এপ্রিল শনিবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে একই দল করপাড়া গ্রাম থেকে পার্শ্ববর্তী নলশ্রী গ্রামে গিয়ে মৃত আ. রব কবিরাজের বাড়ি থেকে তার ছেলে কাওসারকে ধরে এনে মারধর করে বলে অনেকে জানান। আবার
অনেকে বলেছেন অন্য কথা। ছেলেকে রক্ষা করতে গিয়ে তার মা রওশনারা বেগমও আহত হন বলে জানা গেছে। ঘটনাস্থলের অদূরে ক্রিকেট খেলারত আরিফ, মাহমুদ, শাখওয়াত ও সাইফুল বিষয়টি জেনে সেখানে এলে তাদেরকেও মারধর করে আরিফ ওসাইফুলকে বেঁধে রাখা হয়। স্থানীয় মসজিদ থেকে মাইকিং করে মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করার ঘোষণা দেওয়া হলে এসময় শত শত লোক সেখানে জড়ো হয়। খবর পেয়ে চৌকিদার আ. খালেক ওই দুইজনকে গুরুতর আহত অবস্থায়
উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। অন্য আহতরাও হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। এ ঘটনায় ওই দুই যুবকের স্বজনরা হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ওই দিনই থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। এদিকে আহত কাওসার আহম্মেদকে তার বাড়িতে অবরুদ্ধ করে রাখায় সে চিকিৎসা নিতে ব্যর্থ হয় বলে তার প্রতিবেশিরা জানান। ১৯ এপ্রিল রোববার তার অবস্থার অবনতি ঘটলে স্বজনরা তাকে প্রথমে বানারীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন । ওই দিন রাত ৪টার দিকে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। ২০ এপ্রিল সোমবার সেখানে তার লাশের ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়। এদিকে কাওসার ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে এলাকায় মাদক ব্যবসা করার অনেক অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রসঙ্গত নলশ্রী গ্রামের মৃত আ. রব কবিরাজের বড় ছেলে মিজানুর রহমান কবিরাজকে ২০০৭ সালে জমির সীমানা নিয়ে বিরোধের জের ধরে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছিলো। কাওসার আহম্মেদকে হত্যা করার ব্যপারে জামিনে থাকা ওই মামলার আসামীদেরও ইন্ধন থাকতে পারে বলে তার স্বজনরা দাবি করেন। এদিকে এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। বানারীপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ শিশির কুমার পাল জানান এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা
নেওয়া হবে।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর







ফেসবুক কর্নার

শিরোনাম
ঝালকাঠির নলছিটিতে রাস্তার ঢালে সবজি চাষের ওপপটুয়াখালীতে ছাত্র ও যুব পরিষদের মানববন্ধন ও ছালাহউদ্দিন সভাপতি, আবদুল্লাহ জুয়েল সম্পাদক অবশেষে বরখাস্ত হলেন আগৈলঝাড়ার সেই শিক্ষকভাণ্ডারিয়ায় খালে মাথাবিহীন যুবকের লাশআল্লামা শফিকে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে দৌলতখঝালকাঠির পুলিশ কর্মকর্তা এমএম মাহমুদ হাসানকমৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এবরিশাল রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়বরিশালে ঢাবি সাবেক ভিপি নুরের বিরুদ্ধে মিথ্যনুরের বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা২৫ শতাংশ প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলে দেয়ার প্রস্তমৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রীর মায়ের মৃত্যুবরিশাল নগরীর মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তারদল থেকে বহিস্কার হচ্ছেন শারমিন মৌসুমি কেকা
%d bloggers like this: